ঈদে মিলাদুন্নবী কি ও কেন

পাবলিশঃ 2 years ago
দেখেছেনঃ 718

ঈদে মিলাদুন্নবী কি ও কেন

ঈদে মিলাদুন্নবী হলো নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্ম ও জন্মকালীন ঘটনাবলীকে স্মরণ করে যে অনুষ্ঠান করা হয়। এই অনুষ্ঠানটি সাধারণত আরবি মাস রবিউল আওয়াল ১২ তারিখে পালিত হয়।


ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের উদ্দেশ্য হলো নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করা। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর জীবনী ও আদর্শ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এছাড়াও, এই অনুষ্ঠানে মিলাদ শরীফ পাঠ করা হয়, দরুদ ও সালাম পাঠ করা হয় এবং নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্য দোয়া করা হয়।


ঈদে মিলাদুন্নবী পালন নিয়ে মুসলিম উম্মাহর মধ্যে মতবিরোধ রয়েছে। যারা এই অনুষ্ঠানকে বিদাত বলে মনে করেন, তারা বলেন যে, নবী মুহাম্মদ (সা.) বা তাঁর সাহাবাগণ কখনো এই অনুষ্ঠান পালন করেননি। কুরআন ও হাদীসেও এই অনুষ্ঠানের কোনো উল্লেখ নেই। তাই এটি একটি নতুন বিষয় (বিদাত) যা ইসলামে গ্রহণযোগ্য নয়।


যারা এই অনুষ্ঠানকে বিদাত মনে করেন না, তারা বলেন যে, নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্ম ও জন্মকালীন ঘটনাবলী স্মরণ করা একটি মহৎ কাজ। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি আমাদের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করা হয়। তাই এটি একটি সুন্নত কাজ।


বিদাত বলতে নতুন করে কিছু প্রবর্তন করাকে বোঝায়। যদি কোনো নতুন বিষয় ইসলামের মূল দর্শন ও মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক হয়, তাহলে তা বিদাত হবে। কিন্তু যদি কোনো নতুন বিষয় ইসলামের মূল দর্শন ও মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক না হয়, তাহলে তা বিদাত হবে না।


ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো বিবেচনা করা উচিত:


ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের মাধ্যমে যদি ইসলামের মূল দর্শন ও মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক কোনো কাজ করা হয়, তাহলে তা বিদাত হবে।

ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের মাধ্যমে যদি নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করা হয়, তাহলে তা বিদাত হবে না।

সুতরাং, ঈদে মিলাদুন্নবী পালন বিদাত কিনা তা নির্ভর করে এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কী করা হয় তার উপর। যদি এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইসলামের মূল দর্শন ও মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক কোনো কাজ করা হয়, তাহলে তা বিদাত হবে। কিন্তু যদি এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করা হয়, তাহলে তা বিদাত হবে না।


ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের কিছু সুফল:


এটি নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশের একটি সুযোগ।

এটি নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর জীবনী ও আদর্শ সম্পর্কে জানার একটি সুযোগ।

এটি মুসলিমদের মধ্যে ঐক্য ও সম্প্রীতি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের ক্ষেত্রে কিছু সাবধানতা:


এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইসলামের মূল দর্শন ও মূলনীতির সাথে সাংঘর্ষিক কোনো কাজ করা উচিত নয়।

এই অনুষ্ঠানে বাদ্যযন্ত্র বাজানো, নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি অসম্মানজনক আচরণ করা ইত্যাদি থেকে বিরত থাকা উচিত।

ঈদে মিলাদুন্নবী পালন একটি মহৎ কাজ। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা নবী মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রতি আমাদের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করতে পারি।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) সম্পর্কিত অন্যান্য প্রশ্ন সমূহ

মিলাদুন্নবী শব্দের অর্থ কি?
মিলাদ কিভাবে পড়তে হয়?
রাসূল  সোমবার দিন জন্মগ্রহন করেছেন এবং সোমবার  ইন্তেকাল করেছেন।
ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী প্রবর্তন ও প্রবর্তক
ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে মিছিল করা জায়েজ কিনা?
মিলাদ শরীফ শব্দের অর্থ কি ?
ইসলামের দৃষ্টিতে ঈদে মিলাদুন্নবী
ঈদে মিলাদুন্নবীর গুরুত্ব ও তাৎপর্য কি
খোলাফায়ে রাশেদীনের বা সাহাবীদের আমলে পবিত্র ‘ঈদে মিলাদুন্নবী (ﷺ) প্রচলন কী ছিল?
ঈদে মীলাদুন্নবী উপলক্ষে রোজা রাখার নিয়ম কি?
ঈদে মিলাদুন্নবী পালন করা কি জায়েজ ?
ঈদে মিলাদুন্নবিতে আমরা কি আমল করব?
কুরআন হাদিসের আলোকে ‘পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী
ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী পালন করাটা কি আদৌ জরুরী?
ঈদে মিলাদুন্নবী এর ফজিলত
ঈদে মিলাদুন্নবী বিশ্ব নবী (সাঃ) কি রোজা রাখতেন?
ঈদে মিলাদুন্নবী উৎপত্তি ও কারণ কি?
ঈদে মিলাদুন্নবী কি বিদাত
ঈদে মিলাদুন্নবী সম্পর্কে হাদিসের বর্ণনা
ঈদে মিলাদুন্নবি পালন করা যাবে না কেন ?
ঈদ আভিধানিক শব্দের অর্থ কি ?
প্রতি বছর তার মিলাদ বা জন্মদিন পালন করা হয় কেন?
ঈদে মিলাদুন্নবী কি ও কেন
ঈদে মিলাদুন্নবী কি জায়েজ
ঈদে মিলাদুন্নবী কি করনীয়
ইসলামি শরীয়তে দু’টি ঈদের কথা আছে, তৃতীয় ঈদটি কোথায় পেলেন?
সাহাবা (রাঃ) ঈদে মিলাদুন্নবী পালন করতেন কি?
ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষ্যে বিশেষ আমল আছে কি?
ঈদে মিলাদুন্নবী কেন পালন করা হয় ?
ঈদে মিলাদুন্নবী শব্দের অর্থ কি?
সাহাবীরা এই দিবসটি কিভাবে উদযাপন করতেন?