আকিকার মাংস বন্টনের নিয়ম কি?

পাবলিশঃ 2 years ago
দেখেছেনঃ 3514

আকিকার মাংস বন্টনের নিয়ম

আকিকা হলো সন্তান জন্মের পর তার জন্য একটি পশু জবাই করা। আকিকা করা সুন্নত। আকিকার মাংসের বণ্টন সম্পর্কে হাদিসে সুনির্দিষ্ট কোনো নিয়ম নেই। তবে সাধারণভাবে আকিকার মাংস তিন ভাগে ভাগ করা হয়:

  • ১/৩ অংশ নিজেরা খাওয়া।
  • ১/৩ অংশ আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, পাড়া-প্রতিবেশী, ও দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণ করা।
  • ১/৩ অংশ গরিব-মিসকিনদের মধ্যে দান করা।

আকিকার মাংস রান্না করে খাওয়া যায়, আবার কাঁচা মাংসও বিতরণ করা যায়। বর্তমানে আকিকার মাংস রান্না করে খাওয়ার রীতি বেশি প্রচলিত।

আকিকার মাংস বণ্টন করার সময় নিম্নলিখিত বিষয়গুলো খেয়াল রাখা উচিত:

  • আকিকার মাংস বণ্টন করার সময় গরিব-মিসকিনদেরকে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত।
  • আকিকার মাংস বণ্টন করার সময় সন্তানের নাম উল্লেখ করে দোয়া করা উচিত।
  • আকিকার মাংস বণ্টন করার মাধ্যমে সন্তানের জন্য দুআ করা হয় এবং সন্তানের জন্য সৌভাগ্য কামনা করা হয়।

আকিকার মাংস বন্টনের নিয়ম কি?

আকিকার গোস্ত বন্টনের ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট কোনো নিয়ম নেই। তবে, সাধারণত আকিকার গোস্ত তিন ভাগে ভাগ করা হয়। প্রথম ভাগ নিজেরা খাওয়া হয়, দ্বিতীয় ভাগ আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের মধ্যে বণ্টন করা হয় এবং তৃতীয় ভাগ ফকির-মিসকিনদের মধ্যে দান করা হয়।

এছাড়াও, আকিকার গোস্ত রান্না করে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের পাশাপাশি এলাকার গরীব-দুঃখীদেরও আমন্ত্রণ জানানো যেতে পারে।

আকিকার গোস্ত বন্টনের ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি বিবেচনা করা যেতে পারে:

আকিকার গোস্তের পরিমাণ: আকিকার জন্য সাধারণত একটি ছাগল বা দুটি ভেড়া জবাই করা হয়। তাই, আকিকার গোস্তের পরিমাণও যথেষ্ট পরিমাণে থাকে। এই গোস্ত একদিনে শেষ করা সম্ভব না হলে, তা রান্না করে সংরক্ষণ করে পরবর্তীতে খাওয়া যেতে পারে।

আকিকার গোস্তের মাংসের মান: আকিকার গোস্তের মাংস ভালো মানের হওয়া উচিত। তাজা ও সুস্বাদু মাংস বেছে নেওয়া উচিত।

আকিকার গোস্ত বন্টনের সময়: আকিকার গোস্ত বন্টনের সময় খাওয়ার উপযুক্ত সময় হওয়া উচিত। সাধারণত, আকিকার গোস্ত বন্টনের অনুষ্ঠানটি দুপুরের খাবারের সময় করা হয়।

আকিকার গোস্ত বন্টনের মাধ্যমে সন্তানের জন্য দোয়া ও বরকত কামনা করা হয়। তাই, আকিকার গোস্ত বন্টন করার সময় মনের আন্তরিকতা থাকা জরুরি।

আকিকার মাংস বন্টন

আক্বীকা করার পর এর গোশত স্বভাবতই খাওয়া যায় এবং আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, ভিক্ষুক ও গরীবদের মধ্যে বিতরণ করা যায়। এ ব্যাপারে কোন সুনির্দিষ্ট বিধান নেই যা রাসূলের হাদীস দ্বারা স্পষ্টভাবে প্রমাণিত। যেহেতু এটা সবার সাথে উৎসবের ব্যাপার, সেহেতু ওই সব নিকটাত্মীয়দের সাথে মাংস ভাগ করে নেওয়াই ভালো। এমতাবস্থায় আকীকার গোশত মানুষের মধ্যে বণ্টন করতে পারেন।

আর একটা কাজ করা যেতে পারে। অর্থাৎ আকিকার গোশত রান্না করে সবাইকে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করতে পারেন। এই সময়ে এই নীতি সমাজে দৃশ্যমান হয়। এই দুটি পদ্ধতিই সঠিক। খাবারেরও ব্যবস্থা করা যায় এবং মাংসও পৌঁছে দেওয়া যায়। এ ব্যাপারে কোনো সুনির্দিষ্ট নিয়ম নেই।

আকিকা সম্পর্কিত অন্যান্য প্রশ্ন সমূহ

আকিকার মাংস বন্টনের নিয়ম কি?
আকিকার গোস্ত খাওয়ার নিয়ম কি?
সপ্তম দিনের পূর্বেই আকিকা করার  হুকুম কি?
আকিকা আদায় না করলে কি গুনাহগার হবে?
আকিকা শব্দের অর্থ কি?
আকিকার মাংস মা বাবা কি খেতে পারবে?
আকিকা কেন করা হয়?
আকিকার পশু জবাইয়ের নিয়ম কি?
ছেলেদের আকিকা দেওয়ার নিয়ম কি?
ছাগল দিয়ে আকিকার নিয়ম কি?
আকিকা করা কি সুন্নত?
আকিকার পশু জবাই করার দোয়া কি?
আকিকার মাসআলা কি?
আকিকা করা কি ফরজ?
আকিকা কত দিনে করতে হয়?
আকিকা না দিলে কি হয়?
আকিকা কি?
গরু দিয়ে আকিকা দেওয়ার নিয়ম কি?
কুরবানীর সাথে আকিকা দেওয়া যাবে কি না?
আকিকা সম্পর্কে কি কি হাদিস আছে ?
গরু দিয়ে কি আকিকা দেওয়া যায়?
আকীকা করার নিয়ম কি?
কোন কোন পশু দ্বারা আক্বীকা করা যায় ?